Type Here to Get Search Results !

মাধ্যমিক ভৌত বিজ্ঞান সাজেশন ২০২৩ - অষ্টম অধ্যায় - পদার্থের ভৌত ও রাসায়নিক ধর্মসমূহ

মাধ্যমিক ভৌত বিজ্ঞান

অষ্টম অধ্যায়

পদার্থের ভৌত ও রাসায়নিক ধর্মসমূহ

Madhyamik Physical Science Suggestion 2023 WBBSE


প্রথম উপঅধ্যায়

পর্যায়-সারনি এবং মৌলদের ধর্মের পর্যাবৃত্ততা


 'ক' বিভাগ

১. বহুবিকল্প ভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি করে বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি ঠিক সেটি লেখোঃ

(১.১) কোন্‌ বিজ্ঞানীকে 'পর্যায়-সূত্রের জনক' বলা হয় - 

(ক) ডোবেরিনার 

(খ) নিউল্যান্ডস 

(গ) লোথার মেয়ার 

(ঘ) মেন্ডেলিফ

উত্তরঃ (ঘ) মেন্ডেলিফ

(১.২) মৌলের রাসায়নিক ধর্ম নির্ভর করে - 

(ক) প্রোটন সংখ্যার ওপর 

(খ) নিউট্রন সংখ্যার ওপর 

(গ) ভরসংখ্যার ওপর

(ঘ) পারমানবিক ওজনের ওপর

উত্তরঃ (ক) প্রোটন সংখ্যার ওপঅপর

(১.৩) মেন্ডেলিফের আদি পর্যায়-সারনিতে যে মৌলগুলির অস্তিত্ব ছিল না সেগুলি হল - 

(ক) সন্ধিগত মৌল 

(খ) ক্ষারধাতু 

(গ) নিষ্ক্রিয় গ্যাস 

(ঘ) হ্যালোজেন মৌল।

উত্তরঃ (গ) নিষ্ক্রিয় গ্যাস

(১.৪) সর্বাপেক্ষা তড়িৎ-ঋণাত্মক মৌলটি হল - 

(ক) F 

(খ) Cl 

(গ) Br 

(ঘ) l

উত্তরঃ (ক) F

(১.৫) আধুনিক পর্যায়-সূত্রের ভিত্তি হল মৌলের - 

(ক) পারমানবিক গুরত্ব 

(খ) পরমানু-ক্রমাঙ্ক 

(গ) ভরসংখ্যা 

(ঘ) নিউট্রন সংখ্যা

উত্তরঃ (খ) পরমানু ক্রমাঙ্ক 

(১.৬) প্রদত্ত মৌলগুলির মধ্যে কোন্‌টি সন্ধিগত মৌল হয়? 

(ক) Fe 

(খ) Co 

(গ) Ca 

(ঘ) Cr

উত্তরঃ (গ) Ca

(১.৭) কোন্‌ মৌলটি হ্যালোজেন - 

(ক) Na 

(খ) Li 

(গ) Br 

(ঘ) Cd 

উত্তরঃ (গ) Br

(১.৮) পর্যায়-সারনির কোনো নির্দিষ্ট পর্যায়ের বাম দিক থেকে ডান দিকে গেলে আয়নীয় বিভব ক্রমশ - 

(ক) বাড়ে 

(খ) কমে 

(গ) অপরিবর্তিত থাকে 

(ঘ) প্রথিমে কমে, তারপর বাড়ে

উত্তরঃ (ক) বাড়ে

(১.৯) নীচের কোন্‌টি ক্ষার ধাতু সমূহের ক্ষেত্রে পারমানবিক ব্যাসার্ধের সঠিক ক্রম - 

(ক) Na<Rb<K<Cs 

(খ) Na<K<Rb<Cs

(গ) K<Na<Cs<Rb 

(ঘ) Na<Cs<K<RB

উত্তরঃ (খ) Na<K<Rb<Cs

(১.১০) একটি ক্ষারীয় মৃত্তিকা ধাতু হল - 

(ক) Cu 

(খ) Na 

(গ) Mg 

(ঘ) K

উত্তরঃ (গ) Mg

'খ' বিভাগ

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

(২.১) কোন্‌ মৌলটির মেন্ডেলিফ 'দুষ্ট মৌল' (Rogue element) বলেছেন?

উত্তরঃ হাইড্রোজেনকে

(২.২) কোন্‌ ক্ষার ধাতুটি তেজস্ক্রিয়?'

উত্তরঃ ফ্রান্সিয়াম

(২.৩) সবচেয়ে হালকা হ্যালোজেন মৌল কোন্‌টি?

উত্তরঃ ফ্লুরিন

(২.৪) মেন্ডেলিফের ভবিষ্যদ্‌বানী অনুসারে পরবর্তিকালে আবিষ্কৃত হয়েছে এমন একটি মৌলের নাম করো?

উত্তরঃ জার্মেনিয়াম

(২.৫) Cl,F,l,Br কে তড়িৎ-ঋনাত্মকতার ঊর্ধ্বক্রমে সাজাও।

উত্তরঃ F>Cl>Br>l

(২.৬) কোন্‌ পর্যায়ে মৌল্গুলি সব তেজস্ক্রিয়?

উত্তরঃ সপ্তম পর্যায়ের

(২.৭) শূন্যস্থান পূরন করোঃ 

   শূন্য শ্রেনির মৌলগুলি রাসায়লিকভাবে ______________।

উত্তরঃ নিষ্ক্রিয়

(২.৮) শূন্যস্থান পূরন করোঃ 

   সবচেয়ে ভারী প্রাকৃতিক মৌল হল ___________।

উত্তরঃ ইউরেনিয়াম

(২.৯) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ 

   মেন্ডেলিফের পর্যায়-সারনির অষ্টমশ্রেনীতে কোনো উপশ্রেনী নেই।

উত্তরঃ সত্য

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ 

   হাইড্রোজেন ও হ্যালোজেন উভয়ই দ্বি-পরমানুক মৌল।

উত্তরঃ সত্য


'ঘ' বিভাগ

৪. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

প্রশ্নঃ মেন্ডেলিফের পর্যায় সূত্রের সংশোধিত রূপটি লেখো। এই সারণিতে শ্রেণি ও পর্যায়ের সংখ্যা কত?

উত্তরঃ বিভিন্ন মৌলগুলির ভৌত ও রাসায়নিক ধর্ম মৌলগুলির পারমাণবিক ক্রমাঙ্ক অনুযায়ী পুনরাবৃত্ত হয়। পর্যায় সংখ্যা = 7 ও শ্রেণি সংখ্যা = 9টি।

প্রশ্নঃ A, B, C মৌলগুলির পারমাণবিক সংখ্যা যথাক্রমে 6, ৪ ও 10 C হল নিষ্ক্রিয় মৌল। 

(i) কোনটি অপরা তড়িৎধর্মিতা সবচেয়ে বেশি? 

(ii) কার পরমাণুর আকার সবচেয়ে কম? 

(ii) B মৌলটি মেন্ডেলিফের পর্যায় সারণির অবস্থান লেখো।

উত্তরঃ    A → 6 → (K2), L(4)

              B → ৪ → (K2), L(6)

              C → 10 → (K2), L(8)

      (i) পর্যায় বরাবর বাম থেকে ডান দিকে গেলে অপরা তড়িৎধর্মিতা বাড়ে। সুতরাং B- এর অপরা তড়িৎধর্মিতা বেশি।

      (ii) পর্যায় বরাবর বাম থেকে ডানদিকে গেলে পরমাণুর আকার কমে। .: B-এর পরমাণুর আকাঁর সবচেয়ে কম।

      (iii) B এর অবস্থান : পর্যায় সংখ্যা = 2; শ্রেণি সংখ্যা = 6।

প্রশ্নঃ মৌলের পর্যাবৃত্ত ধর্ম কী? পর্যাবৃত্ত নয় এমন একটি ধর্মের উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ মৌল সমূহের বিভিন্ন ভৌত ও রাসায়নিক ধর্মের পর্যায়ক্রমিক পুনরাবৃত্তিকে ধর্মের পর্যায় বৃত্ততা বা পর্যাবৃত্ত ধর্ম বলা হয়। পর্যাবৃত্ত নয় এমন ধর্ম হল তেজস্ক্রিয়তা।

প্রশ্নঃ আদর্শ বা প্রতিনিধি মৌল এবং হ্যালোজেন মৌল বলতে কী বোঝায় উদাহরণ সহ লেখো।

উত্তরঃ 

আদর্শ মৌলঃ যে সমস্ত মৌলের পরমাণুর সর্ববহিঃস্থ কক্ষ ছাড়া অন্য সব কক্ষেই সম্ভাব্য সর্বোচ্চ সংখ্যায় ইলেকট্রন থাকে তাদের আদর্শ মৌল বলা হয়। 1, 2 এবং 13-17নং শ্রেণির মৌলগুলি এই ধরনের মৌল।

হ্যালোজেন মৌলঃ আধুনিক দীর্ঘ পর্যায় সারণির 17নং শ্রেণির ফুডরিন, ক্লোরিন, ব্রোমিন, আয়োডিন ও অ্যাস্টাটিন মৌল পাঁচটিকে হ্যালোজেন মৌল বলে। হ্যালোজেন কথার অর্থ লবণ উৎপাদক। এই মৌলগুলি লবণ উৎপাদন করতে পারে তাই এদের হ্যালোজেন মৌল বলে।

প্রশ্নঃ তড়িৎ ঋনাত্মকতা বলতে কী বোঝো? পর্যায় ও শ্রেণি বরাবর এটি কীভাবে পরিবর্তিত হয়?

উত্তরঃ অন্য কোনো মৌলের পরমাণুর সঙ্গে সমযোজী বন্ধনে আবদ্ধ অবস্থায়, বন্ধন সৃষ্টিকারী ইলেকট্রন জোড়কে কোনো মৌলের পরমাণুর নিজের দিকে আকর্ষণ করার ক্ষমতা বা প্রবণতাকে মৌলটির তড়িৎ ঋণাত্মকতা বলে।

      পর্যায় বরাবর বাম থেকে ডান দিকে গেলে তড়িৎ ঋণাত্মকতা বৃদ্ধি পায়। শ্রেণি বরাবর ওপর থেকে নীচে গেলে তড়িৎ ঋণাত্মকতা হ্রাস পায়।

প্রশ্নঃ পর্যায় সারণির আয়নন বিভবের মান পর্যায় বরাবর কীভাবে পরিবর্তিত হয়? ব্যাখ্যা দাও।

উত্তরঃ পর্যায় সারণির বাঁদিক থেকে ডানদিকে অগ্রসর হলে পরমাণুর কেন্দ্রের নিউক্লিয়াসে একটি প্রোটন বা পজিটিভ চার্জ বৃদ্ধি পায়। কিন্তু ইলেকট্রনগুলি একই কক্ষে যুক্ত হওয়ায় সর্ববহিস্থ কক্ষের ইলেকট্রনগুলির প্রতি কেন্দ্রের আকর্ষণ বলও বৃদ্ধি পায়। ফলে পরমাণুর আকার (ব্যাসার্ধ) উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পায়। এর ফলে বাইরের ইলেকট্রনগুলি আরও বেশি শক্তিতে কেন্দ্রের দিকে আকর্ষিত হয় ও বাইরের ইলেকট্রনগুলি অপসারণ করতে অনেক বেশি শক্তির প্রয়োজন হয়। ফলে আয়নন শক্তির (বিভবের) মানও বৃদ্ধি পায়।

প্রশ্নঃ হাইড্রোজেনকে ‘দুষ্ট মৌল’ বলা হয় কেন?

উত্তরঃ ক্রমবর্ধমান পারমাণবিক গুরুত্ব অনুসারে মৌলগুলিকে পর্যায় সারণিতে সাজাতে গিয়ে মেন্ডেলিফ লক্ষ করেন যে, 1A শ্রেণির ক্ষার ধাতুগুলির সঙ্গে হাইড্রোজেনের ধর্মের যেমন বেশ কিছু সাদৃশ্য আছে, তেমনই VIIB শ্রেণির হ্যালোজেন মৌলগুলির ধর্মের সঙ্গেও এর কিছু সাদৃশ্য আছে। তাই হাইড্রোজেনকে 1A ও VIIB উভয় শ্রেণিতেই স্থান দেওয়া যায়। পর্যায়-সারণিতে হাইড্রোজেনের সঠিক অবস্থান নির্ণয়ের ক্ষেত্রে মেন্ডেলিফ বেশ কিছু অসুবিধার সম্মুখীন হন বলে হাইড্রোজেনকে তিনি ‘দুষ্টু মৌল’ নামে অভিহিত করেন।


দ্বিতীয় উপঅধ্যায়

আয়নীয় ও সমযোজী বন্ধন

'ক' বিভাগ 

১. বহুবিকল্প ভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি ঠিক সেটি লেখোঃ

(১.১) কোন্‌টি জলে অদ্রাব্য - 

(ক) MgCl2 

(খ) NaSO4 

(গ) CHCl3 

(ঘ) HCL

উত্তরঃ (গ) CHCl3

(১.২) নাইট্রোজেন অনুতে বন্ধন সৃষ্টিকারী ইলেকট্রন সংখ্যা - 

(ক) 2 

(খ) 4 

(গ) 6 

(ঘ) 8

উত্তরঃ (গ) 6

(১.৩) একটি পোলার দ্রাবকের উদাহরন হল - 

(ক) বেঞ্জিন 

(খ) ইথার 

(গ) ক্লোরোর্ফম 

(ঘ) জল

উত্তরঃ (ঘ) জল

(১.৪) সমযোজী দ্বি-বন্ধনযুক্ত যৌগ কোন্‌টি? - 

(ক) OF2 

(খ) N2 

(গ) C2H4 

(ঘ) C2H2

উত্তরঃ (গ) C2H4

(১.৫) আয়নীয় বন্ধনের ধারনা দেন বিজ্ঞানী - 

(ক) ডালটন 

(খ) লুইস 

(গ) আরহেনিয়াস 

(ঘ) কোসেল

উত্তরঃ (ঘ) কোসেল

(১.৬) একটি সমযোজী ত্রি-বন্ধনযুক্ত যৌগ হল - 

(ক) H2O 

(খ) CH4 

(গ) CCL4 

(ঘ) C2H2

উত্তরঃ (ঘ) C2H2

(১.৭) সমযোজী বন্ধনের ধারনা দেন বিজ্ঞানী - 

(ক) লুইস 

(খ) আরহেনিয়াস 

(গ) কেলভিন 

(ঘ) অ্যাভোগাড্রো

উত্তরঃ (ক) লুইস

(১.৮) প্রদত্ত কোন্‌টি আয়নীয় যৌগ? - 

(ক) HCL 

(খ) CH4 

(গ) MgCl2 

(ঘ) NH3 

উত্তরঃ (গ) MgCl2

(১.৯) যোজ্যতার ইলেকট্রনীয় তত্বের প্রবক্তা হলেন - 

(ক) লুইস ও কোসেল 

(খ) বর্ণ ও হেবার 

(গ) প্রাউস্ট 

(ঘ) অ্যাভোগাড্রো

উত্তরঃ (ক) লুইস ও কোসেল 

(১.১০) X(Z=20), Y(Z=17) মৌল দুটি দ্বারা উৎপন্ন যৌগের সংকেত হল - 

(ক) XY 

(খ) XY2 

(গ) X2Y2 

(ঘ) X2Y

উত্তরঃ (খ) XY2 


'খ' বিভাগ

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

(২.১) নোব্‌ল গ্যাস মৌলগুলির অস্তিত্ব কে আবিষ্কার করেন? 

উত্তরঃ র‍্যালে ও ব্যামজে

(২.২) জল ও ইথানলের মধ্যে কোন্‌টি বেশি উদ্‌বায়ী?

উত্তরঃ ইথানল

(২.৩) একটি অধ্রুবীয় দ্রাবকের উদাহরন দাও।

উত্তরঃ বেঞ্জিন

(২.৪) একটি কঠিন অনুদ্‌বায়ী সমযোজী যৌগের উদাহরন দাও।

উত্তরঃ চিনি

(২.৫) ড্যাশ (Dash) চিহ্নের সাহায্যে C2H2 অনুর সমযোজী বন্ধনগুলি দেখাও।

উত্তরঃ C2H2 অনু : H-C= C-H

(২.৬) একটি পদার্থের উদাহরন দাও যার কালাসে সমযোজী বন্ধন বর্তমান।

উত্তরঃ হীরের কেলাসে C-C সমযোজী বন্ধন বর্তমান

(২.৭) শূন্যস্থান পূরন করো :

  একই প্রকারের 4 টি বন্ধন আছে এমন সমযোজী  পদার্থের উদাহরন হল __________।

উত্তরঃ মিথেন

(২.৮) শুন্যস্থান পূরন করোঃ

  কঠিন অবস্থায় তড়িৎ পরিবহন করে এমন সমযোজী বন্ধনযুক্ত পদার্থ হল__________।

উত্তরঃ গ্রাফাইট

(২.৯) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

  সমস্ত নিষ্ক্রিয় গ্যাস মৌলের শেষ ইলেকট্রনীয় কক্ষে  8 টি ইলেকট্রন থাকে।

উত্তরঃ সত্য

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ 

  ইথিলিন অনুতে কোনো নিঃসঙ্গ ইলেকট্রন জোড় থাকে না।

উত্তরঃ সত্য


'গ' বিভাগ

৩. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

প্রশ্নঃ প্রাত্যহিক জীবনে ব্যবহূত হয় এমন একটি সমযোজী ও তড়িৎযোজী যৌগের নাম ও সংকেত লেখো।

উত্তরঃ সমযোজী যৌগ - জল (H2O)। তড়িৎযোজী যৌগ - NaCl (সোডিয়াম ক্লোরাইড)।

প্রশ্নঃ Na ও Na+ এর মধ্যে কোনটি বেশি সুথিত ও কেন?

উত্তরঃ Na+ বেশি সুস্থিত। কারণ Na+ নিকটতম নিষ্ক্রিয় গ্যাসের মতো ইলেকট্রন বিন্যাস লাভ করেছে (2, 8)।

প্রশ্নঃ কঠিন Nad তড়িৎ পরিবহন করে না কেন?

উত্তরঃ কঠিন NaCl-এ আয়নের অস্তিত্ব থাকলেও বিপরীত আধানগ্ৰস্ত আয়নগুলির তীব্র আকর্ষণ বলের কারণে আয়নগুলি গতিহীন থাকে। কিন্তু গলিত অবস্থায় দ্রাবকের প্রভাবে আয়নগুলি উপাদান আয়নে বিভাজিত হয়ে কেলাস থেকে বিচ্ছিন্ন হয় ও সচল হয়, সেই কারণে কঠিন NaCl তড়িৎ পরিবহন করে না।

প্রশ্নঃ আয়নীয় যৌগের ক্ষেত্রে সংকেত ওজন যথাযথ কেন?

উত্তরঃ নির্দিষ্ট সংকেত যুক্ত যে কোনো পদার্থের ক্ষেত্রে সংকেত ভর কথাটি প্রযোজ্য, কিন্তু যেসব পদার্থের অণুর পৃথক অস্তিত্ব আছে কেবল তাদের ক্ষেত্রেই আণবিক ভর শব্দটি প্রযোজ্য। NaCl-এর পৃথক কোন অণুর অস্তিত্ব না থাকার জন্য এক্ষেত্রে সংকেত ভর কথাটি অধিক যথাযত।

প্রশ্নঃ রাসায়নিক বন্ধন কাকে বলে?

উত্তরঃ যোজ্যতা কক্ষে ইলেকট্রন গ্রহণ অথবা যোজ্যতা কক্ষ থেকে ইলেকট্রন বর্জন অথবা ইলেকট্রন-জোড় গঠনের মাধ্যমে পরস্পরের সঙ্গে রাসায়নিক বিক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারী পরমাণুগুলির সর্ববহিঃস্থ কক্ষে নিকটতম নিষ্ক্রিয় মৌলের ইলেকট্রন বিন্যাস অর্জনের ফলে যে আকর্ষণ বলের সৃষ্টি হয় তাকে রাসায়নিক বন্ধন বলে।

প্রশ্নঃ অষ্টক সূত্র কাকে বলে?

উত্তরঃ রাসায়নিকভাবে সুস্থিত হওয়ার জন্য বিভিন্ন মৌলের পরমাণু তাঁদের যোজ্যতীকক্ষে ইলেকট্রন গ্রহণ বা যোজ্যতা কক্ষ থেকে ইলেকট্রন বর্জন বা ইলেকট্রন-জোড় গঠনের মাধ্যমে নিকটবর্তী নিষ্ক্রিয় মৌলের পরমাণুর ইলেকট্রন-বিন্যাস লাভের প্রবণতা দেখায়। মৌলসমূহের পরমাণুগুলির সর্ববহিঃস্থ ইলেকট্রনীয় কক্ষের অষ্টক পূর্ণ করার স্বাভাবিক প্রবণতাকে অষ্টক সূত্র বলে।


তৃতীয় উপঅধ্যায়

তড়িৎপ্রবাহ ও রাসায়নিক বিক্রিয়া


'ক' বিভাগ

১. বহু বিকল্পভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি করে বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি ঠিক সেটি লেখোঃ

(১.১) এদের মধ্যে কোন্‌টি তড়িৎ-অবিশ্লেষ্য পদার্থ? - 

(ক) NH4OH এর জলীয় দ্রবন 

(খ) লঘু NHO3 এর দ্রবন

(গ) কার্বন টেট্রাক্লোরাইড 

(ঘ) গলিত সোডিয়াম ক্লোরাইড

উত্তরঃ (ক) NH4OH এর জলীয় দ্রবন 

(১.২) একটি তীব্র তড়িৎ বিশ্লেষ্য পদার্থের উদাহরন হল - 

(ক) H2CO3 

(খ) HNO3 

(গ) NH4OH 

(ঘ) HCOOH

উত্তরঃ (খ) HNO3

(১.৩) একটি অধাতব তড়িৎ পরিবাহী হল - 

(ক) ফুলারিন 

(খ) কোক 

(গ) হীরক 

(ঘ) গ্রাফাইট

উত্তরঃ (ঘ) গ্রাফাইট

(১.৪) রূপার অলংকারে সোনার প্রলেপ দিতে তড়িৎ বিশ্লেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয় - 

(ক) সামান্য বোরিক অ্যাসিড মিশ্রিত NiSO4 দ্রবন 

(খ) পটাশিয়াম আর্জেন্টিসায়ানাইড দ্রবন 

(গ) পটাশিয়াম অরোসায়ানাইড দ্রবন (ঘ) কপার সালফেট দ্রবন

উত্তরঃ (গ) পটাশিয়াম অরোসায়ানাইড দ্রবন

(১.৫) তড়িৎ বিশ্লেষ্য পদার্থ তড়িৎ পরিবহন করে

(ক) কঠিন অবস্থায় 

(খ) গলিত অবস্থায় 

(গ) জলীয় দ্রবনে 

(ঘ) সবগুলি

উত্তরঃ (ঘ) সবগুলি

(১.৬) তড়িৎ বিশ্লেষ্য প্রক্রিয়ায় ক্যাথোড - 

(ক) জারন ঘটে 

(খ) বিজারন ঘটে 

(গ) বিয়োজন ঘটে 

(ঘ) সংযোজন ঘটে

উত্তরঃ (খ) বিজারন ঘটে

(১.৭)  তড়িৎ লেপনের উদ্দেশ্য হল - 

(ক) ধাতব বস্তুকে আবহাওয়াজনিত ক্ষয় থেকে রক্ষা করা 

(খ) ধাতব বস্তুর সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা 

(গ) ধাতব বস্তুর ওজন বৃদ্ধি করা 

(ঘ) সবগুলি 

উত্তরঃ (ঘ) সবগুলি  

(১.৮) যে পাত্রে তড়িৎ বিশ্লেষণ করা হয় তা হল - 

(ক) ভোল্টামিটার 

(খ) পোটেনসিওমিটার 

(গ) গ্যালভানোমিটার 

(ঘ) ভোল্টমিটার

উত্তরঃ (ক) ভোল্টামিটার

(১.৯) তড়িৎ বিশ্লেষনের ব্যাবহারিক প্রয়োগ হল - 

(ক) তড়িৎলেপন 

(খ) তড়িৎ-বিশোধন 

(গ) ধাতু নিষ্কাশন 

(ঘ) সবগুলি

উত্তরঃ (ঘ) সবগুলি

(১.১০) অ্যাসিড মিশ্রিত জলের তড়িৎবিশ্লেষনে ক্যাথোড ও অ্যানোড উৎপন্ন গ্যাসের আয়তনের অনুপাত - 

(ক) 1:2 

(খ) 2:1 

(গ) 1:1 

(ঘ) 2:3

উত্তরঃ (খ) 2:1

'খ' বিভাগ 

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

(২.১) তড়িৎ-অপরিবাহী অধাতব কঠিন মৌলের উদাহরন দাও।

উত্তরঃ সালফার

(২.২) ভোল্টামিটার কাকে বলে?

উত্তরঃ তড়িৎ বিশ্লেষন করা যন্ত্রকে

(২.৩) ক্রায়োলাইট, ফ্লুওস্পার ও অ্যালুমিনার মিশ্রনের গলনাঙ্ক কত? 

উত্তরঃ 900⁰C

(২.৪) একটি তরল পদার্থের নাম করো যা তড়িৎ পরিবহন করে অথচ তড়িৎবিশ্লেষ্য নয়?

উত্তরঃ পারদ

(২.৫) ইলেকট্রনীয় পরিবাহীর উদাহরন দাও।

উত্তরঃ তামা, নিকেল

(২.৬) একটি জৈব পদার্থের নাম লেখো যার জলীয় দ্রবন তড়িতের পরিবাহী।

উত্তরঃ অ্যাসিটিক অ্যাসিড

(২.৭) শুন্যস্থান পূরন করোঃ

  একটি নিষ্ক্রিয় তড়িদ্দ্বারের উদাহরন হল ____________।

উত্তরঃ প্ল্যাটিনাম

(২.৮) শুন্যস্থান পূরন করোঃ 

  জলের তড়িৎবিশ্লেষনের পূর্বে যে অ্যাসিডটি কয়েক ফোঁটা যোগ করা উচিত সেটি হল __________।

উত্তরঃ H2SO4 

(২.৯) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

  তড়িৎবিশ্লেষ্য দ্রবনের তিড়িৎ পরিবহনকালে যে-কোনো মুহূর্তে ক্যাটায়ন ও অ্যানায়ন মোট আধান সমান থাকে।

উত্তরঃ সত্য

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ 

  তড়িৎ-লেপন পদ্ধতিতে যে বস্তুর ওপর ধাতব প্রলেপ দেওয়া হয় তাকে ক্যাথোড রূপে ব্যবহার করা হয়।

উত্তরঃ সত্য


'ঘ' বিভাগ 

৪. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

প্রশ্নঃ তড়িৎ বিশ্লেষ্য বলতে কী বোঝো? একটি মৃদু ও একটি তীব্র তড়িৎ বিশ্লেষ্যের নাম লেখো।

উত্তরঃ যে সমস্ত পদার্থ জলে দ্রবীভূত বা গলিত অবস্থায় তড়িৎ পরিবহন করে এবং তার ফলে রাসায়নিকভাবে বিশ্লিষ্ট হয়ে নতুন পদার্থ উৎপন্ন করে তাদের তড়িৎ বিশ্লেষ্য পদার্থ বলা হয়।

      একটি মৃদু তড়িৎ বিশ্লেষ্য হল-CH3COOH

      একটি তীব্র তড়িৎ বিশ্লেষ্য হল—-NaOH

      একটি তীব্র অবিশ্লেষ্য হল—চিনির দ্রবণ, পারদ।

প্রশ্নঃ তড়িৎলেপন কাকে বলে? এর উদ্দেশ্য লেখো।

উত্তরঃ তড়িৎ বিশ্লেষণ পদ্ধতিতে কোনো বেশি সক্রিয় ধাতু বা ধাতু সংকরের (Fe, Cu) ওপর কম সক্রিয় ধাতু (Au, Ag, Ni, Cr)-এর প্রলেপ দেওয়ার পদ্ধতিকে তড়িৎলেপন বলা হয়।

উদ্দেশ্যঃ তড়িৎলেপনের প্রধান উদ্দেশ্যগুলি হল - 

(১) বস্তুকে আবহাওয়া থেকে রক্ষা করা।

(২) বস্তুর সৌন্দর্য বাড়িয়ে তোলা।

প্রশ্নঃ অ্যানোডাইজিং কী? অ্যানোড মাড কী?

উত্তরঃ 

অ্যানোডাইজিংঃ জল, বায়ু ও বিভিন্ন লবণের প্রভাবে Al বা ইহার সংকর ধাতুর তৈরি দ্রব্যের ক্ষয় রোধের জন্য তড়িৎ বিশ্লেষণ পদ্ধতিতে Al2O3 -এর পাতলা প্রলেপ দেওয়াকে অ্যানোডাইজিং বলে।

অ্যানোড মাডঃ কপার ধাতুর তড়িৎ পরিশোধনের সময় অ্যানোডের নীচে Ag, Pt, Au, Rh ইত্যাদি অশুদ্ধি কাদার আকারে জমা হয়। একে অ্যানোড মাড বা অ্যানোড কাদা বলে। অ্যানোড মাড থেকে ওই মূল্যবান ধাতুকে সংগ্রহ করা হয়।

প্রশ্নঃ "তড়িৎ বিশ্লেষ্যের মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহের ফলে তড়িৎ বিশ্লেষ্যের রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটে" - ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ গলিত বা উপযুক্ত দ্রাবকে দ্রবীভূত অবস্থায় তড়িৎ বিশ্লেষ্য পদার্থগুলি আয়নে বিয়োজিত হয়। এই অবস্থায় তড়িৎ বিশ্লেষ্যের মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহ চালনা করলে ক্যাটায়নগুলি ক্যাথোডে গিয়ে উপযুক্ত সংখ্যক ইলেকট্রন গ্রহণ করে এবং অ্যানায়নগুলি অ্যানোডে গিয়ে ইলেকট্রন ত্যাগ করে প্রশম পরমাণু বা মুলকে পরিণত হয়। এভাবে ক্যাথোডে ও অ্যানোডে নতুন ধর্মবিশিষ্ট পদার্থ উৎপন্ন হয় যাদের ধর্ম তড়িৎ বিশ্লেষ্যের ধর্ম থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। সুতরাং তড়িৎ বিশ্লেষ্যের মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহের ফলে রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটে। যেমন অ্যাসিড মিশ্রিত জলের মধ্য দিয়ে তড়িৎপ্রবাহ পাঠালে ক্যাথোডে হাইড্রোজেন গ্যাস ও অ্যানোডে অক্সিজেন গ্যাস উৎপন্ন হয়, যাদের ধর্ম জলের ধর্ম থেকে সম্পূর্ণ পৃথক।

প্রশ্নঃ তড়িৎ বিয়োজন কাকে বলে? উদাহরণ দাও।

উত্তরঃ বিগলিত কিংবা উপযুক্ত দ্রাবকে দ্রবীভূত অবস্থায় তড়িৎবিশ্লেষ্য পদার্থগুলি স্বতঃস্ফূর্তভাবে আংশিক বা সম্পূর্ণরূপে বিয়োজিত হয়ে ক্যাটায়ন ও অ্যানায়ন উৎপন্ন করে। এই ঘটনাকে তড়িৎ বিয়োজন বলে।

উদাহরণঃ NaCl যৌগটি বিগলিত কিংবা জলে দ্রবীভূত অবস্থায় বিয়োজিত হয়ে Na+ ও Cl- আয়ন মুক্ত করে। NaCl (গলিত বা দ্রবীভূত) = Na+ + Cl-।


চতুর্থ উপঅধ্যায় 

পরীক্ষাগার ও রাসায়নিক শিল্পে অজৈব রসায়ন


'ক' বিভাগ  

১. বহু বিকল্প ভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি করে বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি ঠিক সেটি লেখোঃ 

(১.১) পরীক্ষাগারে হাইড্রোজেন সালফাইড গ্যাস প্রস্তুতিতে লঘু HCl সাধারনত ব্যবহৃত হয় না, কারন -

 (ক) HCl জারক দ্রব্য 

(খ) HCl বিজারক দ্রব্য 

(গ) HCl খুব ধীরে বিক্রিয়া করে 

(ঘ) HCl উদ্‌বায়ী। 

উত্তরঃ (ঘ) HCl উদ্‌বায়ী 

(১.২) নেসলার বিকারকের সঙ্গে বিক্রিয়া করে বাদামি বর্ণের অধঃক্ষেপ উৎপন্ন করে - 

(ক) NH3 

(খ) HCl 

(গ) HNO3 

(ঘ) NaOH

উত্তরঃ (ক) NH3

(১.৩) হেবার পদ্ধতিতে অ্যামোনিয়া প্রস্তুতির সময় N2 ও  H2 গ্যাসকে যে আয়তন অনুপাতে মেশানো হয়, তা হল - 

(ক) 2:3 

(খ) 3:1

(গ) 1:3 

(ঘ) 3:2 

উত্তরঃ (গ) 1:3

(১.৪) লাইকার অ্যামোনিয়ার আপেক্ষিক গুরুত্ব - 

(ক) 0.80 

(খ) 0.88 

(গ) 1.1 

(ঘ) 1.84

উত্তরঃ (খ) 0.88

(১.৫) ঘুমের ওষুধ বারবিটিউরেট প্রস্তুতিতে ব্যবহৃত হয় - 

(ক) অ্যামোনিয়া 

(খ) নাইট্রিক অ্যাসিড 

(গ) হাইড্রোজেন সালফাইড 

(ঘ) ইউরিয়া

উত্তরঃ (ঘ) ইউরিয়া

(১.৬) কোল্ড স্টোরেজে হিমায়করূপে ব্যবহৃত হয় - 

(ক) H2S 

(খ) SO2 

(গ) NH3 

(ঘ) N2O

উত্তরঃ (গ) NH3

(১.৭) প্রকৃতিতে প্রাপ্ত যে যৌগে N2 আবদ্ধ থাকে - 

(ক) সোরা 

(খ) বক্সাইট 

(গ) চিলি সল্টপিটার 

(ঘ) হেমোটাইট

উত্তরঃ (গ) চিলি সল্টপিটার

(১.৮) চোখের কর্নিয়া সংরক্ষনে ব্যবহৃত হয় - 

(ক) NO 

(খ) H2S 

(গ) N2 

(ঘ) NO2 

উত্তরঃ (গ) N2

(১.৯) নাইট্রোজেন মাটিতে আবদ্ধ থাকে - 

(ক) N2 হিসেবে 

(খ) NH3 হিসেবে 

(গ) ধাতব নাইট্রেট যৌগরূপে 

(ঘ) কোনোটিই নয়

উত্তরঃ (গ) ধাতব নাইট্রট যৌগরূপে 

(১.১০) অয়েল অব ভিট্রিয়ল নামে পরিচিত - 

(ক) HCl 

(খ) H2SO4 

(গ) HNO3 

(ঘ) NH3

উত্তরঃ (খ) H2SO4


'খ' বিভাগ

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

(২.১) অ্যামোনিয়ার বাষ্পঘনত্ব কত?

উত্তরঃ 8.5

(২.২) ইউরিয়াতে শতকরা কতভাগ নাইট্রোজেন থাকে? 

উত্তরঃ 46%

(২.৩) পরীক্ষাগারে H2S প্রস্তুতিতে লঘু HCl ব্যবহার করলে কী অসুবিধা হবে?

উত্তরঃ হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড বাষ্পে মিশে যায়

(২.৪) উত্তপ্ত CuO এর উপর দিয়ে কোন্‌ গ্যাস চালনা করলে N2 উৎপন্ন হয়?

উত্তরঃ NH3

(২.৫) ধূমায়মান সালফিউরিক অ্যাসিড বা ওলিলিয়াম রাসায়নিক সংকেত কী? 

উত্তরঃ H2S2O7

(২.৬) ফেরিক লবনের জলীয় দ্রবণে অ্যামোনিয়া গ্যাস চালনা করলে কী বর্ণের অধঃক্ষেপ উৎপন্ন হবে?

উত্তরঃ বাদামি

(২.৭) শুন্যস্থান পূরন করোঃ 

  ধূমায়মান সালফিউরিক অ্যাসিডের রাসায়নিক নাম ____________।

উত্তরঃ পাইরোসালফিউরিক অ্যাসিড

(২.৮) শুন্যস্থান পূরন করোঃ 

 ________ গ্যাস আর্দ্র বাতাসে সাদা ধোঁয়া সৃষ্টি করে।

উত্তরঃ HCl

(২.৯) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

উত্তরঃ N2 ও H2 থেকে NH3 এর শিল্পে প্রস্তুতিতে বর্তমান ফেরিক অক্সাইড অনুঘটক ব্যবহার করা হয়।

উত্তরঃ সত্য 

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখো : 

 কৃত্রিম সিল্ক বা রেয়ন প্রস্তুতিতে ইউরিয়া ব্যবহৃত হয়।

উত্তরঃ সত্য


'গ' বিভাগ

৩. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

প্রশ্নঃ একটি বিক্রিয়া উল্লেখ করো যার থেকে বোঝা যায় যে অ্যামোনিয়াতে নাইট্রোজেন আছে।

উত্তরঃ কিউপ্রিক অক্সাইডের উপর দিয়ে অ্যামোনিয়া গ্যাস চালনা করলে কিউপ্রিক অক্সাইড বিজারিত হয়ে ধাতব কপার এবং অ্যামোনিয়া জারিত হয়ে নাইট্রোজেন উৎপন্ন করে। 

3CuO + 2NH₃ → N + 3Cu + 3HO

প্রশ্নঃ নাইট্রোলিম কী?

উত্তরঃ ১১০০⁰ উষ্ণতায় উত্তপ্ত ক্যালশিয়াম কার্বাইডের উপর দিয়ে নাইট্রোজেন গ্যাস চালনা করলে ক্যালশিয়াম সায়ানামাইড ও কার্বন উৎপন্ন হয়। এইভাবে প্রাপ্ত ক্যালশিয়াম সায়ানামাইড ও কার্বনের ধূসর মিশ্রণকে নাইট্রোলিম বলে।

প্রশ্নঃ রূপোর তৈরি জিনিস পুরোনো হলে কালো হয়ে যায় কেন?

উত্তরঃ বায়ুর মধ্যে অল্প পরিমাণ H₂S থাকে। রূপোর তৈরি জিনিস বহুদিন ধরে খোলা বায়ুতে থাকলে রূপোর সঙ্গে H₂S-এর বিক্রিয়ায় কালো রঙের সিলভার সালফাইড উৎপন্ন হয়। ফলে রূপোর জিনিস কালো হয়ে যায়।

Ag + H₂S → Ag₂S + H₂

প্রশ্নঃ 'ওলিয়াম' কী?

উত্তরঃ ৯৮% গাঢ় সালফিউরিক অ্যাসিড ও সালফার ডাইঅক্সাইডের মিশ্রণকে ওলিয়াম বলে।


'ঘ' বিভাগ

৪. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ

প্রশ্নঃ ওসওয়াল্ড পদ্ধতিতে নাইট্রিক অ্যাসিড প্রস্তুতি বর্ণনা করো।

উত্তরঃ (i) বিশুদ্ধ NH3 বিশুদ্ধ অক্সিজেনের (1 : 10 অনুপাতে) মিশিয়ে 5-7 atm চাপে 700°C – 800°C উয়তায় pt অনুঘটকের উপস্থিতিতে NO তৈরি হয়।

      4NH3 + 5O2 

pt তারজালি

5-7atm 700-800°C

 4NO + 6H2O + 6H2O + 90KJ

(i) অনুঘটকীয় প্রকোষ্ঠ থেকে নির্গত মিশ্রণকে শীতক কক্ষে ঠান্ডা করে 50°C -এ নামানো হয় ও O2 দ্বারা জারিত হয়ে NO2 তৈরি হয়।

      2NO + O2 

50°C

2NO2

(ii) ওই মিশ্রণকে কোয়ার্টজ পূর্ণ শোষক স্তম্ভে প্রবেশ করিয়ে NO2 জলে শােষিত হয়ে HNO3 এর লঘু দ্রবণ তৈরি হয়।

      3NO2+H2O = 2HNO3 + NO

      4NO2 + O2 +2H2O = 4HNO3

      উৎপন্ন লঘু HNO3 এর সঙ্গে গাঢ় H2SO4 মিশিয়ে পাতিত করলে গাঢ় HNO3 পাওয়া যাবে।

প্রশ্নঃ স্পর্শ পদধতিতে সালফার থেকে H2SO4 প্রস্তুতির সমীকরণ লেখো।

উত্তরঃ (i) S+O2 = SO2↑, 4FeS2 + 11O2 = 2Fe2O3 +8SO2↑

(ii) 2SO2 +O2 

V2O5

450°C

 2SO3 + 45Kcal

(iii) SO3+H2SO4 = H2S2O7 (ওলিয়াম)

(iv) H2S2O7 + H2O = 2H2SO4(সালফিউরিক অ্যাসিড)

প্রশ্নঃ ইউরিয়ার প্রধান প্রধান ব্যবহারগুলি উল্লেখ করো।

উত্তরঃ ইউরিয়ার ব্যবহারগুলি নিম্নরূপ -

(১) ইউরিয়া কৃষিকার্যে নাইট্রোজেন ঘটিত জৈব সার হিসাবে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।

(২) ইউরিয়া থেকে কালাজ্বরের ওষুধ ইউরিয়া স্টিমিন তৈরি করা হয়। এছাড়া ইউরিয়া ব্যবহার করে ঘুমের ওষুধ বারবিটিউবেট তৈরি করা হয়।

(৩) সেলোফেন কাগজ, রেয়ন, নাইট্রোসেলুলােজ (বিস্ফোরক পদার্থ) প্রভৃতির শিল্পোৎপাদনে ইউরিয়া ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্নঃ পরীক্ষাগারে N2 প্রস্তুতির প্রয়ােজনীয় দ্রব্য, বিক্রিয়ার শর্ত, সমীকরণ, সংগ্রহ লেখো।

উত্তরঃ প্রয়োজনীয় দ্রব্যঃ সোডিয়াম নাইট্রাইট (NaNO2) ও অ্যামোনিয়াম ক্লোরাইড (NH4Cl)।

শর্তঃ NaNO2 ও NH4Cl মিশিয়ে জলীয় দ্রবণকে ধীরে ধীরে উত্তপ্ত করতে হবে। 

সমীকরণঃ NaNO2+NH4Cl= NH4NO2 + NaCl

NH4NO2 = N2 + 2H2O

সংগ্রহঃ জলের নিম্ন অপসারণ দ্বারা N2 গ্যাস জারে সংগ্রহ করা হয়।

প্রশ্নঃ শিল্পক্ষেত্রে অ্যামোনিয়ার প্রধান প্রধান ব্যবহারগুলি উল্লেখ করো।

উত্তরঃ শিল্পক্ষেত্রে অ্যামোনিয়ার ব্যবহারগুলি নিম্নরুপ -

(১) অ্যামোনিয়াম সালফেট, অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট, অ্যামোনিয়াম ফসফেট, ইউরিয়া ইত্যাদি সার প্রস্তুতিতে অ্যামোনিয়া ব্যবহৃত হয়।

(২) অওয়াল্ড পদ্ধতিতে নাইট্রিক অ্যাসিড ও সলভে পদ্ধতিতে সোডিয়াম কার্বনেট প্রস্তুতিতে অ্যামোনিয়া ব্যবহৃত হয়।

(৩) তরল অ্যামোনিয়ার বাষ্পীভবনের লীনতাপের মান বেশি হওয়ায় রেফ্রিজারেটর, বরফ তৈরির কারখানায় ও কোল্ড স্টোরেজে শীতলীকরণের কাজে হিমায়করূপে অ্যামোনিয়াকে ব্যবহার করা হয়।


পঞ্চম উপঅধ্যায় 

ধাতুবিদ্যা


'ক' বিভাগ 

১. বহুবিকল্প ভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি করে বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি ঠিক সেটি লেখোঃ

(১.১) কোন্‌টি লোহার খনিজ হলেও আকরিক নয় - 

(ক) লাল হিমাটাইট 

(খ) ম্যাগনেটাইট 

(গ) আয়রন পাইরাইটস্‌ 

(ঘ) সিডারাইট

উত্তরঃ (গ) আয়রন পাইরাইটস্‌

(১.২) বিমানের কাঠামো তৈরিতে ব্যবহৃত সংকর ধাতুটি হল - 

(ক) জার্মান সিলভার 

(খ) ব্রোঞ্জ 

(গ) ইনভার 

(ঘ) ডুরালুমিন

উত্তরঃ (ঘ) ডুরালুমিন

(১.৩) বিশুদ্ধতম আয়রন হল - 

(ক) কাস্ট আয়রন 

(খ) রট্‌ আয়রন 

(গ) স্টিল আয়রন 

(ঘ) ইনভার

উত্তরঃ (খ) রট্‌ আয়রন

(১.৪) পিতিলে যে উপাদানটি শতকরা পরিমানে বেশি থাকে তা হল - 

(ক) কপার 

(খ) জিংক 

(গ) অ্যালুমিনিয়াম 

(ঘ) লোহা

উত্তরঃ (ক) কপার

(১.৫) কোন্‌ আয়নের উপস্থিতিতে লোহার মরচে পড়ার হার বৃদ্ধি পায় - 

(ক) Na+ 

(খ) Ca+ 

(গ) Cl- 

(ঘ) O2-

উত্তরঃ (গ) Cl-

(১.৬) ডুরালুমিন সংকর ধাতুর প্রধান উপাদান - 

(ক) Al 

(খ) Zn 

(গ) Fe 

(ঘ) Cu 

উত্তরঃ (ক) Al

(১.৭) গ্যালভানাইজ্‌ড আয়রন হল প্রকৃতপক্ষে - 

(ক) Zn প্রলিপ্ত আয়রন 

(খ) Sn প্রলিপ্ত আয়রন 

(গ) Ni প্রলিপ্ত আয়রন

(ঘ) Cr প্রতিপ্ত আয়রন

উত্তরঃ (ক) Zn প্রলিপ্ত আয়রন

(১.৮) কোন্‌ ধাতুটি সাধারন উষ্ণতায় ফুটন্ত জলের সঙ্গে বিক্রিয়া করে না, কিন্তু স্টিমের সঙ্গে বিক্রিয়া করে H2 উৎপন্ন করে? - 

(ক) Mg 

(খ) Zn 

(গ) Fe 

(ঘ) Al

উত্তরঃ (গ) Fe

(১.৯) কোন্‌ ধাতুটিকে 'আত্মরক্ষায় সমর্থ' ধাতু বলা হয় - 

(ক) Al 

(খ) Fe 

(গ) Na 

(ঘ) Au

উত্তরঃ (ক) Al

(১.১০) লোহার মরিচা হল - 

(ক) সোদক ফেরিক হাইড্রক্সাইড 

(খ) সোদক ফেরিক অক্সাইড 

(গ) অনার্দ্র ফেরিক অক্সাইড 

(ঘ) সোদন ফেরিক কার্বনেট

উত্তরঃ (খ) সোদক ফেরিক অক্সাইড


'খ' বিভাগ

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

(২.১) ছাপার ব্লক তৈরিতে কোন্‌ ধাতু ব্যবহৃত হয়? 

উত্তরঃ জিংক

(২.২) কোন্‌ ধাতুটি পিতল ও ব্রোঞ্জ উভয় সংকর ধাতুতেই থাকে? 

উত্তরঃ তামা

(২.৩) স্টেইনলেস স্টিলের প্রধান উপাদান কী কী? 

উত্তরঃ আয়রন ( 73%), ক্রোমিয়াম (18%) ও নিকেল (9%)

(২.৪) লোহার ওপর মরচে পড়া কী ধরনের প্রক্রিয়া?

উত্তরঃ তড়িৎ-রাসায়নিক প্রক্রিয়া 

(২.৫) প্রাচীন ভারতে যে উন্নতমানের ইস্পাত প্রস্তুত করা হত তার নিদর্শন কোথায় দেখা যায়?

উত্তরঃ বর্তমান দিল্লিতে গুপ্তযুগের লৌহস্তম্ভ

(২.৬) অ্যালুমিনিয়াম ও টিনের মধ্যে কোন্‌টি সক্রিয়তা শ্রেনিতে অপেক্ষাকৃত অপরে অবস্থিত?

উত্তরঃ অ্যালুমিনিয়াম

(২.৭) শুন্যস্থান পূরন করোঃ

  মাটির নীচে তেলবাহী পাইপের সঙ্গে যুক্ত Mg-ব্লক ____________ রূপে ক্রিয়া করে।

উত্তরঃ অ্যানোড

(২.৮) শুন্যস্থান পূরন করোঃ

  ক্রায়োলাইট ___________ ধাতুর আকরিক।

উত্তরঃ অ্যালুমিনিয়াম

(২.৯) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ 

  রেল লাইনের পাত জুড়তে থার্মিট ব্যবহৃত হয়।

উত্তরঃ সত্য 

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

  অ্যালুমিনিয়াম ধাতু খোলা বাতাসে রাখলেও তার আবহাওয়াজনিত ক্ষয় হয় না।

উত্তরঃ সত্য


'গ' বিভাগ 

৩. নিম্নলিখিত প্রশ্নের উত্তর দাওঃ

প্রশ্নঃ আয়রন, অ্যালুমিনিয়াম ও জিঙ্কের একটি আকরিক ও ব্যবহার লেখো।

উত্তরঃ 

আয়রনের আকরিকঃ ম্যাগনেটাইট (Fe3O4)

আয়রনের ব্যবহারঃ জলের পাইপ, কড়াই, দরজা, পেরেক, মােটরগাড়ি, জাহাজ ইত্যাদি তৈরিতে। অ্যালুমিনিয়ামের আকরিকঃ ক্রায়াোলাইট (AlF3, ও NaF)।

অ্যালুমিনিয়ামের ব্যবহারঃ বিমান ও গাড়ির কাঠামো, বৈদ্যুতিক তার ইত্যাদি তৈরিতে।

জিঙ্কের আকরিকঃ জিঙ্ক ব্লেন্ড (ZnS)

জিঙ্কের ব্যবহারঃ গ্যালভানাইজেশনে, রং শিল্পে, ছাপার ব্লক প্রস্তুতিতে ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্নঃ কলঙ্কহীন ইস্পাতের উপাদান লেখো। একটি ব্যবহার লেখো।

উত্তরঃ 

কলকহীন ইস্পাতের উপাদানঃ লোহা 73%, নিকেল ৪%, ক্রোমিয়াম ৪%, ও কার্বন 1%।

ব্যবহারঃ মোটরগাড়ির যন্ত্রাংশ, বাসনপত্র, অস্ত্রপচারের যন্ত্রপাতি ইত্যাদি প্রস্তুতিতে।

প্রশ্নঃ থামিট পদ্ধতির নীতি লেখো। থামিট মিশ্রণ কী?

উত্তরঃ 

নীতিঃ লোহা, ক্রোমিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, কোবাল্ট প্রভৃতি ধাতুর অক্সাইডকে Al চুর্ণ সহযোগে উত্তপ্ত করলে ধাতুগুলি বিজারিত হয়ে গলিত ধাতুতে পরিণত হয়। এই পদ্ধতিকে গোল্ডস্মিথের থার্মিট পদ্ধতি বলা হয়।

থার্মিট মিশ্রণঃ তিন ভাগ Fe2, O3 ও একভাগ Al চুর্ণের মিশ্রণকে থার্মিট মিশ্রণ (Thermit Mixture) বলা হয়। এটি ভাঙা রেললাইন মেরামত করতে ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্নঃ মরিচা পড়ার একটি আর্থিক ক্ষতি উল্লেখ করো। কীভাবে মরিচা নিবারণ করা হয়?

উত্তরঃ মরিচা পড়লে লোহার জিনিস ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। স্থায়িত্ব ও দৃঢ়তা নষ্ট হয়।

নিবারণের উপায়ঃ (১) লোহার গায়ে আলতারা বা তেল রং লাগানো।

(২) লোহার ওপর দস্তার প্রলেপ দেওয়া ইত্যাদি।

প্রশ্নঃ কপারের পাত্র আর্দ্র বায়ুতে রাখলে সবুজ ছোপ পড়ে কেন?

উত্তরঃ আর্দ্র বায়ুতে কপারকে রেখে দিলে এর ওপর কপার অক্সাইডের আস্তরণ পড়ে, যা বাতাসের O2, CO2, জলীয় বাষ্পের সংস্পর্শে এসে সবুজ বর্ণের ক্ষারীয় কপার কার্বনেটে (CuCO3, Cu(OH)2, পরিণত হয়, আবার SO2, এর উপস্থিতিতে কপার অক্সাইডের আস্তরণ জারিত হয়ে সবুজ বর্ণের ক্ষারকীয় কপার সালফেট [CuSO4, Cu(OH)2] পরিণত হয়।

 8Cu + 6H2O+ 2SO2 + 5O2 = 2[CuSO43Cu(OH)]

প্রশ্নঃ Al বা দস্তার পাত্রে খাবার জিনিস রাখা উচিত নয় কেন?

উত্তরঃ টক জাতীয় ফল বা আচারে মধ্যে বিভিন্ন জৈব অ্যাসিড থাকে। এই অ্যাসিড Zn বা Alএর সঙ্গে বিক্রিয়ায় বিষাক্ত লবণ তৈরি করে, যা মানবদেহের পক্ষে ক্ষতিকর। তাই Al বা Zn পাত্রে খাবার জিনিস রাখা অনুচিত।

প্রশ্নঃ কলঙ্কহীন ইস্পাত কাকে বলে এবং কেন?

উত্তরঃ আর্দ্র বায়ুতে লোহায় মরচে ধরে, কিন্তু ওর সংকর ধাতুর স্টেইনলেস স্টিলে ধরে না। তাই একে কলহীন ইস্পাত বলে।

প্রশ্নঃ 'গ্যালভানাইজেশন' কাকে বলে?

উত্তরঃ লোহার দ্রব্যের ওপর জিংকের পাতলা প্রলেপ দিয়ে লোহাকে আবহাওয়ার প্রভাবজনিত ক্ষয় থেকে রক্ষা করা অর্থাৎ লোহার ওপরে মরচে পড়াকে রোধ করার পদ্ধতিকে গ্যালভানাইজেশন বা জিংক লেপন বলে। লোহার দ্রব্যের ওপর জিংকের এরূপ প্রলেপ দেওয়া থাকলে তাকে গ্যালভানাইড আয়রন বলে।

প্রশ্নঃ তামা তাপের সুপরিবাহী–এই ধর্মটির ব্যাবহারিক প্রয়োগ উল্লেখ করো।

উত্তরঃ (১) রান্নার বাসনপত্র তৈরিতে তামা ব্যবহৃত হয়। এর ফলে সহজে খাদ্যবস্তুতে তাপ। সরবরাহ করা যায় ও রান্না দ্রুত সম্পন্ন হয়।

(২) ক্যালোরিমিটার প্রস্তুতিতে তামা ব্যবহৃত হয়। এর সাহায্যে পরীক্ষাধীন বস্তুর দ্বারা গৃহীত বা বর্জিত তাপ সহজে পরিমাপ করা যায়।

(৩) কলকারখানার বয়লার তৈরিতে তামা ব্যবহূত হয়। তাপের সুপরিবাহী হওয়ায়। বয়লারের জল দ্রুত গরম হয়।

প্রশ্নঃ লোহার মরচে রোধ করার জন্য জিংক লেপন বা গ্যালভানাইজেশন করা হয় কেন?

উত্তর : লোহার মরচে রোধ করার জন্য জিঙ্কের প্রলেপ দেওয়ার কারণ হল তড়িৎ রাসায়নিক শ্রেণিতে জিঙ্কের অবস্থান আয়রনের ওপরে। সুতরাং আয়রন অপেক্ষা জিঙ্ক তড়িৎ-ধনাত্মক অর্থাৎ জিঙ্কের জারিত হওয়ার প্রবণতা আয়রন অপেক্ষা বেশি। তাই জিঙ্ক ও আয়রন একত্রে থাকলে বায়ুর অক্সিজেন বা জলীয় বাষ্পের আক্রমণে আয়রনের আগেই জিঙ্ক জারিত হয়। ফলে জিঙ্কের উপস্থিতিতে আয়রন জারণের হাত থেকে রক্ষা পায়। তাই লোহায় মরচে পড়া রোধ করার জন্য জিঙ্ক লেপন বা গ্যালভানাইজেশন করা হয়।

প্রশ্নঃ সমুদ্রগামী জাহাজের ইস্পাত নির্মিত কাঠামো বা জলের নীচের পাইপ লাইনের সাথে ম্যাগনেশিয়ামের ব্লক যুক্ত করার কারণ ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ জাহাজের ইস্পাত নির্মিত কাঠামো বা জলের নীচের পাইপ লাইনের সাথে ম্যাগনেশিয়াম ব্লক যুক্ত করে মরিচা পড়া নিবারণ করা হয়। ম্যাগনেশিয়াম আয়রন অপেক্ষা বেশি ইলেকট্রো পজিটিভ বলে নিজে জারিত হয় এবং আয়রনকে মরিচা পড়া থেকে রক্ষা করে। লবণাক্ত জলে ইস্পাত ও ম্যাগনেশিয়াম একটি তড়িৎকোশ সৃষ্টি করে। এখানে ম্যাগনেশিয়াম অ্যানোডরূপে কাজ করে ও ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। আয়রনের ক্যাথোডীয় সংরক্ষণ ঘটে।

ক্যাথোড বিক্রিয়া    অ্যানোড বিক্রিয়া

Mg = Mg+2+ 2e    02 + 4H+ + 4e = 2HO2

প্রশ্নঃ অ্যালুমিনিয়াম পাতে আচার বা চাটনি খাওয়া উচিত নয় কেন?

উত্তরঃ আচার বা চাটনি জাতীয় খাবারে ভিনিগার মেশানো হয়। ভিনিগারের মুখ্য উপাদান অ্যাসিটিক অ্যাসিড (CH3COOH) নামক একটি জৈব অ্যাসিড। অ্যাসিটিক অ্যাসিড অ্যালুমিনিয়াম পাত্রের সঙ্গে বিক্রিয়া করে AI ঘটিত লবণ উৎপন্ন করে, যা বিষাক্ত। এর ফলে AI পাতে আচার বা চাটনি খাদ্য হিসাবে গ্রহণ করলে শরীরে বিষক্রিয়া সৃষ্টি হয়। তাই Al পাতে চাটনি বা আচার খাওয়া উচিত নয়।

প্রশ্নঃ লোহার মরচে পড়া কাকে বলে? মরচে পড়ার ফলে লোহার জিনিস ক্ষয়প্রাপ্ত হয় কেন?

উত্তরঃ লোহা বা লোহাজাত দ্রব্যকে আর্দ্র বায়ুতে কিছুদিন খোলা অবস্থায় রেখে দিলে, লোহার ওপর লালচে বাদামি রঙের সোদক ফেরিক অক্সাইড (Fe2O3.xH2O)-এর একটি আস্তরণ পড়ে, একেই লোহায় মরচে পড়া বলে।

     উৎপন্ন মরচের আয়তন, লোহার আয়তন অপেক্ষা বেশি। তাই মরচে পড়া অংশটি শিথিল হয়ে খসে পড়ে। এর ফলে লোহা ধীরে ধীরে ক্ষয়প্রাপ্ত হয়।


ষষ্ঠ উপঅধ্যায়

জৈব রসায়ন


'ক' বিভাগ 

১. বহু বিকল্পভিত্তিক প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের নীচে চারটি করে বিকল্প উত্তর দেওয়া আছে। যেটি ঠিক সেটি লেখোঃ

(১.১) একই সমগনীয় শ্রেণির পরপর দুটি সমগনের মধ্যে আনবিক ভরের পার্থক্য - 

(ক) 8 

(খ) 12 

(গ) 14 

(ঘ) 26

উত্তরঃ (গ) 14

(১.২) কোন্‌টি সম্পৃক্ত হাইড্রোকার্বন নয়? - 

(ক) CH4 

(খ) C2H6 

(গ) C2H4 

(ঘ) C3H8

উত্তরঃ (গ) C2H4

(১.৩) সরলতম অ্যালকেন হল - 

(ক) মিথেন 

(খ) ইথেন 

(গ) প্রোপেন 

(ঘ) বিউটেন

উত্তরঃ (ক) মিথেন

(১.৪) মিথেন অনুতে H-C-H বদ্ধন-কোনের মান হল - 

(ক) 105⁰ 

(খ) 110⁰ 

(গ) 109⁰28' 

(ঘ) 108⁰19'

উত্তরঃ (গ) 109⁰28'

(১.৫) ফল পাকানোর জন্য ব্যবহার করা হয় - 

(ক) মিথেন 

(খ) ইথিলিন 

(গ) LPG 

(ঘ) CNG

উত্তরঃ (খ) ইথিলিন

(১.৬) মাস্টার্ড গ্যাস প্রস্তুতিতে ব্যবহার হয় - 

(ক) অ্যাসিটিলিন 

(খ) ইথিলিন 

(গ) ইথেন 

(ঘ) মিথেন

উত্তরঃ (খ) ইথিলিন

(১.৭) ইথিলিন অ্যালকোহল ও ডাইমিথাইল ইথারের মধ্যে যে ধরনের সমাবয়বতা দেখা যায় তা হল - 

(ক) শৃংখলঘটিত

(খ) অবস্থানঘটিত 

(গ) কার্যকরীমূলকঘটিত 

(ঘ) কোনোটিই নয়।

উত্তরঃ (গ) কার্যকরীমূলকঘটিত

(১.৮) নন্‌-স্টল বাসনপত্র তৈরিতে যে পলিমার যৌগটি ব্যবহৃত হয় সেটি হল - 

(ক) পলিভিনাইল ক্লোরাইড 

(খ) পলিথিন 

(গ) টেফলন 

(ঘ) পলিস্টাইরিন 

উত্তরঃ টেফলন

(১.৯) CNG-এর প্রধান উপাদান - 

(ক) মিথেন 

(খ) ইথেন 

(গ) বিউটেন 

(ঘ) প্রোপেন

উত্তরঃ (ক) মিথেন

(১.১০) ভিনিগার যে জৈব পদার্থটি থাকে সেটি হল - 

(ক) ফর্মিক অ্যাসিড 

(খ) ফর্ম্যালডিহাইড 

(গ) অ্যাসিটিক অ্যাসিড

(ঘ) অ্যাসিট্যাল ডিহাইড

উত্তরঃ (গ) অ্যাসিটিক অ্যাসিড


'খ' বিভাগ

২. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

(২.১) মিথেন অনুর জ্যামিতিক আকৃতি কীরূপ?

উত্তরঃ সমচতুস্তলকীয়

(২.২) এমন একটি হাইড্রোকার্বন যৌগের উদাহরন দাও যেটি একটি গ্রিনহাউস গ্যাস।

উত্তরঃ মিথেন

(২.৩) কার্বন ব্ল্যাক কী?

উত্তরঃ 1000⁰C উষ্ণতায় মিথেন বিয়োজিত হয়ে সূক্ষ কার্বন গুঁড়ো উৎপন্ন করে। একে কার্বন ব্ল্যাক বলা হয়।

(২.৪) সরলতম অ্যালকাইনের IUPAC নাম লেখো।

উত্তরঃ ইথাইন

(২.৫) নীল লিটমাসকে লাল করে এমন একটি জৈব যৌগের উদাহরন দাও।

উত্তরঃ অ্যাসিটিক অ্যাসিড 

(২.৬) ভিনিগার কী?

উত্তরঃ অ্যাসিটিক অ্যাসিডের 5-8% জলীয় দ্রবনকে ভিনিগার বলে।

(২.৭) শুন্যস্থান পূরন করোঃ

  CNG-এর সম্পূর্ন কথাটি হল ___________ ।

উত্তরঃ Compressed Natural Gas

(২.৮) শুন্যস্থান পূরন করোঃ 

  LPG-এর সম্পূর্ন কথাটি হল__________।

উত্তরঃ Liquefied Petrileum Gas

(২.৯) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

  ইথেন অনুতে সমযোজী বদ্ধন সংখ্যা 7।

উত্তরঃ সত্য 

(২.১০) সত্য না মিথ্যা লেখোঃ

  আলেয়া উৎপাদনকারী প্রধান গ্যাসটি হল মিথেন।

উত্তরঃ সত্য

Madhyamik Suggestion 2023 Download PDF

'গ' বিভাগ

৩. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

প্রশ্নঃ সমাবয়াবতা কী?

উত্তরঃ একই আনবিক সংকেত বিশিষ্ট কিন্তু পৃথক ধর্মবিশিষ্ট একাধিক যৌগ গঠনের। ঘটনাকে সমাবয়বতা বলে। যেমন – C3H6O।

প্রশ্নঃ টেফলনের মনোমার কী? একটি ব্যবহার লেখো।

উত্তরঃ টেফলনের মনোমার হল টেট্রাফ্লুরোইথিলিন (CF2 = CF2)।

ব্যবহারঃ ননস্টিকের বাসনপত্র, পাইপ ও টাংক তৈরিতে এটি ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্নঃ LPG ও CNG-এর মুখ্য উপাদানগুলোর নাম লেখো। ব্যবহার লেখো।

উত্তরঃ LPG (Liquified Petrolium Gas) এর উপাদান বিউটেন ও CNG (Compressed Natural Gas)-এর উপাদান মিথেন।

ব্যবহারঃ রান্নার কাজে জ্বালানিরূপে ও মোটরগাড়ির জ্বালানি হিসাবে ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্নঃ আলেয়া কীভাবে উৎপন্ন হয়?

উত্তরঃ কর্দমাক্ত জলাভূমিতে গাছপালা পচে মিথেন গ্যাস উৎপন্ন হয়। এর সঙ্গে ফসফিন (PH3) এবং ফসফরাস ডাই হাইড্রাইড (P2H6) গ্যাস (জুলনশীল) মিশে থাকে।

      P2H6 গ্যাস 02-এর সংস্পর্শে জ্বলে ওঠে তখন ফসফিন ও মিথেন গ্যাসও জ্বলে ওঠে। অন্ধকারে এইভাবে আগুনের শিখা জ্বলে ওঠার ঘটনাকে আলেয়া বলা হয়।

      এটি কোনো ভৌতিক বিষয় নয়, প্রাকৃতিক ঘটনা।

প্রশ্নঃ নীচের যৌগগুলিতে উপস্থিত কার্যকরী গ্রুপের সংকেত লেখো। 

(a) ইথাইল অ্যালকোহল

(b) অ্যাসিট্যালডিহাইড

(c) মিথানল

(d) ইথানয়িক অ্যাসিড

(e) অ্যাসিটোন

উত্তরঃ (a) ইথাইল অ্যালকোহল — OH

(b) অ্যাসিট্যালডিহাইড — CHO

(c) মিথানল — OH

(d) ইথানয়িক অ্যাসিড — COOH

(e) অ্যাসিটোন — >C = 0

প্রশ্নঃ IUPAC নাম লেখো -

(a) CH2COOH

(b) CH3CH2COOH

(c) CH3CH(OH)CH3

(d) CH3 – CH2 – CH3

ত্তর : (a) CH2COOH = ইথানয়িক অ্যাসিড

(b) CH3CH2COOH = প্রোপানোয়িক অ্যাসিড

(c) CH3CH(OH)CH3 = 2-হাইড্রপ্রিপ্রোপেন

(d) CH3 – CH2 – CH3 = প্রোপেন

'ঘ' বিভাগ

৪. নিম্নলিখিত প্রশ্নগুলির উত্তর দাওঃ 

প্রশ্নঃ কোন গ্যাসকে মার্স গ্যাস বলে কেন?

উত্তরঃ মিথেন (CH4) কে মার্স গ্যাস বলে।

      জলাভূমিতে বিভিন্ন গাছপালা পচে মিথেন গ্যাস উৎপন্ন হয়। মিথেন সাধারণত জলাভূমি বা Marshy Land থেকে উৎপন্ন হওয়ায় মিথেনকে মার্শ গ্যাস (Marsh Gas) বলা হয়।

প্রশ্নঃ কর্দমাক্ত জলাভূমিতে যে আলেয়া দেখা যায় সেটি কী কোনো ভৌতিক ব্যাপার - ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ কর্দমাক্ত জলাভূমিতে যে আলেয়া দেখা যায় সেটি কোনো ভৌতিক ব্যাপার নয়। কারণ কর্দমাক্ত পচা জলাভূমিতে জীবদেহের পচনের ফলে মিথেন গ্যাস উৎপন্ন হয়। এই মিথেনের সঙ্গে ফসফিন (PH3) এবং ফসফরাস-ডাই-হাইড্রাইড (P2H4) গ্যাস থাকে। ফসফরাস-ডাই-হাইড্রাইড বায়ুর সংস্পর্শে জ্বলে ওঠে। সেই সঙ্গে দাহ্য গ্যাস ফসফিন এবং মিথেন গ্যাসও জ্বলতে থাকে। বায়ুপ্রবাহের জন্য জ্বলন্ত আগুনের শিখা ধীরে ধীরে চলতে থাকে। একেই আলেয়ার আলো বলে।

প্রশ্নঃ জ্বালানিরূপে CNG ব্যবহারের সুবিধাগুলি উল্লেখ করো।

উত্তরঃ সুবিধাগুলি হল -

(১) CNG-তে কার্বনের পরিমাণ কম থাকায় এই জ্বালানির দহনে কার্বন কণা ও CO2 গ্যাসের উৎপাদন অন্যান্য জ্বালানি অপেক্ষা অনেক কম হয়। ফলে পরিবেশ কম দূষিত হয়।

(২) CNG-এর জুলনাঙ্ক (1350°F) খুব বেশি হওয়ায় সহজে জ্বলে ওঠে না, তাই নিরাপদে ব্যবহার করা যায়।

(৩) CNG-এর দহনে ধোঁয়া বা ছাই উৎপন্ন হয় না।

প্রশ্নঃ ইথাইল অ্যালকোহলের উল্লেখযোগ্য ব্যবহারগুলি উল্লেখ করো।

উত্তরঃ উল্লেখযোগ্য ব্যবহারগুলি হল - 

(১) শিল্পক্ষেত্রে রজন, সাবান, বার্নিশ, রং, রেয়ন, সুগন্ধি, রঞ্জক দ্রব্য, গালা, কৃত্রিম রবার, কৃত্রিম তন্তু ও ওষুধ প্রস্তুতিতে দ্রাবক হিসেবে ইথাইল অ্যালকোহল ব্যবহৃত হয়।

(২) ইথার, ইথাইল হ্যালাইড, ইথাইল এস্টার, ক্লোরােফর্ম, অ্যাসিটিক অ্যাসিড, ইথিলিন, মেথিলেটেড স্পিরিট প্রভৃতি প্রস্তুতিতে ইথাইল অ্যালকোহল ব্যবহৃত হয়।

(৩) বিভিন্ন মদ জাতীয় পানীয় প্রস্তুতিতে প্রধান উপাদান হিসাবে ইথাইল অ্যালকোহল ব্যবহার করা হয়। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

LightBlog

Below Post Ad

LightBlog

AdsG

close