Type Here to Get Search Results !

Class 9 Physical Science Model Activity Compilation / Class 9 Model Activity Task Part 8 Physical Science Marks 50

 ভৌতবিজ্ঞান

নবম শ্রেণি

পূর্ণমান - ৫০


১. ঠিক উত্তর নির্বাচন করো :


১.১ নীচের যেটি পরিমাপযোগ্য ভৌতরাশি নয় সেটি হলো -

(ক) একটি ন্যাপথালিন বলের ভর

(খ) একটি ন্যাপথালিন বলের ভরবেগ

(গ) একটি ন্যাপথালিন বলের গন্ধ

(ঘ) একটি ন্যাপথালিন বলের পৃষ্ঠতলের ক্ষেত্রফল

উত্তরঃ (গ) একটি ন্যাপথালিন বলের গন্ধ


১.২ আইসোবারদের ক্ষেত্রে নীচের যে কথাটি ঠিক তা হলো এদের -

(ক) ভর সমান

(খ) প্রোটনসংখ্যা সমান

(গ) নিউট্রনসংখ্যা সমান

(ঘ) ভরসংখ্যা সমান

উত্তরঃ (ঘ) ভরসংখ্যা সমান


১.৩ ভরবেগের মাত্রীয় সংকেত হলো -

(ক) MLT

(খ) MLT2

(গ) ML2T

(ঘ) MLT-1

উত্তরঃ (ঘ) MLT-1


১.৪ জলের যে ধর্মের জন্য একটি ছোট পোকা জলের উপরিতলে হেঁটে বেড়াতে পারে তা হলো -

(ক) জলের ঘনত্ব

(খ) জলের সান্দ্রতা

(গ) জলের তাপ পরিবাহিতা

(ঘ) জলের পৃষ্ঠটান

উত্তরঃ (ঘ) জলের পৃষ্ঠটান


১.৫ শক্তির মাত্রীয় সংকেত হলো -

(ক) ML2T2

(খ) ML-2T2

(গ) ML2T-2

(ঘ) Ml-2T-2

উত্তরঃ (গ) ML2T-2


১.৬ কোনো স্প্রিংয়ের বল ধ্রুবকের একক হলো -

(ক) Nm

(খ) Nm2

(গ) N/m2

(ঘ) N/m

উত্তরঃ (ঘ) N/m


১.৭ গাঢ় ও উত্তপ্ত নাইট্রিক অ্যাসিড ও তামার বিক্রিয়ার নাইট্রোজেনের যে অক্সাইড উৎপন্ন হয় তা হলো -

(ক) N2O5

(খ) N2O

(গ) NO2

(ঘ) NO

উত্তরঃ (গ) NO2


১.৮ একটি বলকে খাড়াভাবে উপরের দিকে ছোঁড়া হলো। যাত্রাপথের সর্বোচ্চ বিন্দুতে বলটির -

(ক) গতিশক্তি সর্বাধিক

(খ) স্থিতিশক্তি সর্বাধিক

(গ) গতিশক্তি ও স্থিতিশক্তির মান সমান

(ঘ) গতিশক্তি অপেক্ষা স্থিতিশক্তির মান কম

উত্তরঃ (খ) স্থিতিশক্তি সর্বাধিক


২. শূন্যস্থান পূরণ করো :


২.১ বিস্তৃত দশা কঠিন ও বিস্তার মাধ্যম তরল একটি কোলয়ডীয় মিশ্রণের উদাহরণ হলো ____________।

উত্তরঃ ইমালসন


২.২ জলে সাবান দিয়ে প্রাপ্ত দ্রবণের পৃষ্ঠটান বিশুদ্ধ জলের চেয়ে _____________ হয়।

উত্তরঃ বেশি


২.৩ SI পদ্ধতিতে ক্ষমতার একক হলো _____________।

উত্তরঃ ওয়াট


৩. নীচের বাক্যগুলি সত্য অথবা মিথ্যা তা নিরূপণ করো :


৩.১ আপেক্ষিক ঘনত্ব একটি এককহীন রাশি।

উত্তরঃ সত্য


৩.২ একটি বস্তু R cm ব্যাসার্ধের বৃত্তাকার পথের অর্ধেক অতিক্রম করলে তার সরণ হবে R cm।

উত্তরঃ মিথ্যা


৩.৩ 12C স্কেলে ক্লোরিনের পারমাণবিক গুরুত্ব 35.453 হলে একটি ক্লোরিন পরমাণুর ভর 35.453 u।

উত্তরঃ সত্য


৩.৪ ব্যারোমিটারের পাঠ দ্রুত কমতে থাকলে বোঝা যায় যে নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে।

উত্তরঃ সত্য


৩.৫ যে দ্রবণে মিথাইল অরেঞ্জের রং হলুদ তার pH>7।

উত্তরঃ সত্য


৩.৬ কার্য একটি ভেক্টর রাশি।

উত্তরঃ মিথ্যা


৪. একটি শব্দে অথবা একটি বাক্যে উত্তর দাও :


৪.১ SI এককে এক মোল পরিমাণ কার্বন ডাই অক্সাইডের ভর কত?

উত্তরঃ SI এককে এক মোল পরিমাণ কার্বন ডাই অক্সাইডের ভর = 0.044 কিলোগ্রাম


৪.২ রাবার ও ইস্পাতের মধ্যে কোন্‌টির ইয়ং গুণাঙ্কের মান বেশি হবে?

উত্তরঃ ইস্পাতের ইয়ং গুণাঙ্কের মান বেশি।


৪.৩ একটি অ্যাসিড লবণের সংকেত লেখো।

উত্তরঃ সোডিয়াম বাইসালফেট


৫. সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :


৫.১ STP - তে হাইড্রোজেন গ্যাসের ঘনত্ব 0.0898 g/L হলে SI এককে এই ঘনত্বের মান নির্ণয় করো।

উত্তরঃ আমরা জানি 1 g/L =1 kg/m3

STP তে হাইড্রোজেন গ্যাসের ঘনত্ব 0.0898g/L হলে, SI এককে এই ঘনত্বের মান হবে 0.0898 kg/m3


৫.২ একটি মৌলের পরমাণুতে প্রোটন ও ইলেকট্রনের মোট সংখ্যা 184। পরমাণুটির ভরসংখ্যা 235 হলে এতে কটি নিউট্রন আছে নির্ণয় করো।

উত্তরঃ দেওয়া আছে, পরমাণুতে প্রোটন ও ইলেকট্রন এর মোট সংখ্যা= 184

পরমাণুর প্রোটন সংখ্যা= (184÷2) = 92

ভর সংখ্যা= 235

পরমাণুতে নিউটন সংখ্যা= ভরসংখ্যা - প্রোটন সংখ্যা=235-92=143


৫.৩ এক লিটার দ্রবণে 18 g গ্লুকোজ (আণবিক ওজন 180) আছে। দ্রবণের মোলার মাত্রা নির্ণয় করো।

উত্তরঃ প্রদত্ত 1 লিটার দ্রবণে গ্লুকোজ আছে = 18 gm

গ্লুকোজের আণবিক ওজন = 180

180 gm গ্লুকোজ = 1 গ্রাম-অণু গ্লুকোজ

18 gm গ্লুকোজ =18/180 = 0.1 গ্রাম-অণু গ্লুকোজ

1 লিটার দ্রবণে 0.1 গ্রাম-অণু গ্লুকোজ দ্রবীভূত আছে

দ্রবণের মোলার মাত্রা = 0.1 মোল / লিটার


৫.৪ লঘু হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড ও লঘু সালফিউরিক অ্যাসিড আছে। একটি রাসায়নিক পরীক্ষায় এই দুটি দ্রবণের পার্থক্য নির্ণয় করতে কী বিকারক ব্যবহার করবে? সংশ্লিষ্ট ভৌত পরিবর্তনটির উল্লেখ করো।

উত্তরঃ এখানে দুটি অ্যাসিডের মধ্যে পার্থক্য নির্ণয় করার জন্য সিলভার নাইট্রেট AgNO3 ব্যবহার করতে হবে।

সিলভার নাইট্রেট দ্রবণের সঙ্গে লঘু হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড HCl এর বিক্রিয়ায় অদ্রাব্য সিলভার ক্লোরাইডের সাদা থকথকে অধঃক্ষেপ উৎপন্ন হয়। এই অধঃক্ষেপ নাইট্রিক অ্যাসিডে অদ্রাব্য, কিন্তু অ্যামোনিয়াম হাইড্রক্সাইডে দ্রাব্য।

AgNO3 + HCl = AgCl↓ + HNO3

কিন্তু লঘু সালফিউরিক অ্যসিড H2SO4 সিলভার নাইট্রেট দ্রবণের সঙ্গে বিক্রিয়া করে কোনো সাদা অধঃক্ষেপ উৎপন্ন করা না।

উপরোক্ত রাসারনিক পরীক্ষার মাধ্যমে খুব সহজেই লঘু হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড ও লঘু সালফিউরিক অ্যাসিডের মধ্যে পার্থক্য করা যায়।

এখানে সংশ্লিষ্ট ভৌত পরিবর্তনটি হলো সিলভার ক্লোরাইডের সাদা অধঃক্ষেপের বৃষ্টি।


৫.৫ জলে সোডিয়াম ক্লোরাইডের আয়ন দ্রবীভূত হওয়া আর প্রোটিন অণুর দ্রবীভূত হওয়ার মধ্যে পার্থক্য কী তা ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ জলে সোডিয়াম ক্লোরাইডের আয়ন খুব সহজেই সম্পূর্ণরূপে দ্রবীভূত হয়ে যায়। সোডিয়াম ক্লোরাইড দ্রুবীয় হওয়ায় Na+ ও Cl- আয়ন গঠন দ্বারা জলের মধ্যে দ্রবীভূত হয়ে যায় সহজেই কারণ জল নিজেও একটি ধ্রুবীয় দ্রাবক।

       কিন্তু প্রোটিন অনু অধ্রুবীয় তাই ধ্রুবীয় দ্রাবকে দ্রবীভূত হয় না।


৫.৬ কোনো বস্তুর ভর m ও গতিশক্তি E  হলে প্রমাণ করো যে বস্তুটির ভরবেগ হলো (2mE) 1/2।

উত্তরঃ দেওয়া আছে, বস্তুটির ভর m

ও গতিশক্তি E

ধরি, বস্তুটির বেগ U

ஃ বস্তুটির গতিশক্তি E = 1/2mU²

বা, U² = 2E/m

বা, U = √2E/m

তাহলে বস্তুটির রৈখিক ভরবেগ,

P = m U 

= m √2E/m

= √2E/m²/m

= √2mE

= (2mE)1/2


৫.৭ সাধারণ স্কেলের সাহায্যে একটি পাতলা পাতার গড় বেধের মান কীভাবে নির্ণয় করা যায়?

উত্তরঃ একটি বড়ো পাতলা কাগজ নিলাম। এবার ওই পাতলা কাগজটিকে অনেকবার ভাঁজ করে ও ভালো ভাবে চেপে নিলাম। এবার ভাঁজ করা মোটা কাগজের অংশটির বেধ সাধারণ স্কেল দিয়ে পরিমাপ করলাম। ধরি x টি ভাঁজ দেওয়া কাগজটির বেধ d একক। প্রাপ্ত বেধ কে ভাঁজ সংখ্যা দিয়ে ভাগ করলেই পাতলা কাগজের বেধ জানা যাবে। যদি x সংখ্যক ভাঁজের মোট বেধ d হয় তবে পাতলা কাগজটির বেধ = d÷x।


৫.৮ আলফা কণার বিচ্ছুরণের পরীক্ষার ফলাফল থেকে রাদারফোর্ড পরমাণুর গঠন সম্বন্ধে কী কী সিন্ধান্তে উপনীত হন?

উত্তরঃ আলফা কণার বিচ্ছুরণের পরীক্ষার ফলাফল থেকে রাদারফোর্ড পরমাণুর গঠন সম্বন্ধে যে যে  সিন্ধান্তে উপনীত হন তা হলো -

(ক) যেহেতু অধিকাংশ আলফা কণা কোনোদিকে বিক্ষিপ্ত না হয়ে সোজাপথে বেরিয়ে আসে অতএব পরমাণু নিরেট নয়, পরমাণুর বেশিরভাগ স্থানই ফাঁকা।

(খ) যে আলফা কণাগুলি সামান্য কোণে বিক্ষিপ্ত হয় সেগুলি পরমাণুর  ভিতর কোনো ধনাত্মক আধানের কাছে দিয়ে যায়, এর ফলে আলফা কণার সামান্য বিক্ষেপণ ঘটে।

(গ) ধনাত্মক আধান ধনাত্মক আধানকে বিকর্ষণ করে। আলফা রশ্মি ধনাত্ম আধানযুক্ত কণা, সুতরাং গতিশীল ভারী আধানযুক্ত আলফা কনাকে তার গতির বিপরীতে ফিরিয়ে দিতে পারে অপর এক ভারী ধনাত্মক আধানগ্রস্ত কণা।


৫.৯ এক কিলোগ্রাম ভরের একটি বস্তু 1 m/s বেগে ধাবমান হলে তার গতিশক্তি কত হবে তা নির্ণয় করো।

উত্তরঃ গতিশক্তি = 1/2 xবস্তুর ভর x বেগ 2

= 1/2 x1x(1)2 জুল

= 0.5 জুল

অতএব, বস্তুটির গতিশক্তি 0.5 জুল।


৬. নীচের প্রশ্নটির উত্তর দাও :


৬.১ একটি ট্রেন 60 km/h দ্রুতিতে চলছিল। ব্রেক কষার ফলে 1 m/s2 মন্দন সৃষ্টি হলো। ট্রেনটির থামতে কত সময় লাগবে নির্ণয় করো।

উত্তরঃ ট্রেনটি প্রাথমিক বেগ (u) = 60 km/h 

   =60×(1000÷3600)=(50÷3) m/s

   অন্তিম বেগ (v) = 0

   মন্দন(a) =1m/s2

   সময় (t) =?

  মন্দন এর ক্ষেত্রে আমরা জানি,

  V = u - at 

বা, 0=(50÷3)-1×t

বা, t =16(2/3) sec

ট্রেনটি থামতে (16 পূর্ণ 2এর 3) sec সময় লাগবে ।


৬.২  একটি জৈব যৌগ ভর অনুপাতে 0.031% ফসফরাস আছে। যদি ঐ যৌগটির একটি অণুতে একটিই ফসফরাস পরমাণু থাকে তাহলে যৌগের মোলার ভর নির্ণয় করো (তোমাকে দেওয়া আছে P = 31)। যৌগটির অণুর আয়তন সম্বন্ধে তুমি কী বলতে পারো?

উত্তরঃ প্রশ্নে দেওয়া আছে, 

100 গ্রাম জৈবযৌগে ফসফরাস (P) আছে 0.031

প্রশ্নানুসারে,

0.031 গ্রাম ফসফরাস উপস্থিত 100 গ্রাম জৈবযৌগে

  1 গ্রাম ফসফরাস উপস্থিত 100 / 0.031 গ্রাম জৈবযৌগে

31 গ্রাম ফসফরাস উপস্থিত 100Х31/0.031 গ্রাম জৈবযৌগে

                                         = 100Х31Х1000/0.031 গ্রাম জৈবযৌগে

                                         = 100000 গ্রাম জৈবযৌগে

তাহলে, প্রশ্নানুযায়ী ফসফরাসের আনবিক ভর 31 হলে যৌগটির মোলার ভর হবে 100000 গ্রাম / মোল

এবং যৌগটির একটি অনুর আয়তন হবে

= 22.4/6.022Х10²³ লিটার

= 3.71Х10-²³ লিটার


৬.৩ একটি হাল্কা ও একটি ভারী বস্তুর ভর যথাক্রমে m ও M। বস্তুদুটির ভরবেগ সমান হলে কোন্‌টির গতিশক্তি বেশি হবে তা নির্ণয় করো।

উত্তরঃ আমরা জানি, হালকা বস্তুর ভর= m

ভারী বস্তুর ভর= M

ধরি,বস্তু দুটির ভরবেগ = p

হালকা বস্তুর গতিশক্তি, E1= (p2/2m).........(i)

ভারী বস্তুর গতিশক্তি,E2= (p2/2M)........(ii)

(i) ÷ (ii) করে পাই,

(E1/E2)=(M/m) >1

E1>E2

বস্তুটির ভরবেগ সমান হলে হালকা বস্তুটির গতিশক্তি বেশি।


৬.৪ নীচের প্রতিটি একটি করে উদাহরণ দাও :

ক) অভিকর্ষ

খ) অভিকর্ষ বলের বিরুদ্ধে কাজ করা হচ্ছে

গ) বস্তুর সরণ ঘটলেও অভিকর্ষ বল কোনো কাজ করছে না

উত্তরঃ (ক) একটি বস্তু উপর থেকে নিচে পড়ছে , এক্ষেত্রে অভিকর্ষ বল কাজ করছে। 

(খ) একটি বস্তুকে উপরের দিকে তোলা হচ্ছে , এক্ষেত্রে অভিকর্ষ বলের বিরুদ্ধে কার্য করা হচ্ছে। 

(গ) এক ব্যক্তি একটি সুটকেস হাতে নিয়ে অনুভূমিক তলে হেটে গেল এক্ষেত্রে বস্তুর সরণ ঘটলেও অভিকর্ষ বল কাজ করছে না কারণ অভিকর্ষ বল ও সুটকেসের সরন পরস্পর লম্ব।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

1 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

LightBlog

Below Post Ad

LightBlog

AdsG

close