পার্বত্য প্রবাহে বা উচ্চ গতিতে নদীর ক্ষয় কার্যের ফলে ভূমিরূপ গুলির বিবরণ দাও।
Type Here to Get Search Results !

পার্বত্য প্রবাহে বা উচ্চ গতিতে নদীর ক্ষয় কার্যের ফলে ভূমিরূপ গুলির বিবরণ দাও।

 প্রশ্ন : পার্বত্য প্রবাহে বা উচ্চ গতিতে নদীর ক্ষয় কার্যের ফলে ভূমিরূপ গুলির বিবরণ দাও।

উত্তর : উচ্চগতিতে বা পার্বত্য প্রবাহে নদীর ক্ষয় কার্যের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপ গুলি আলোচনা করা হলো -
(১) I ও V আকৃতির উপত্যকা :
     নদীর উচ্চ গতিতে ভূমির উচ্চতা ও ঢাল খুব বেশি হয়, তাই নদী বেশি পরিমাণে নিম্নক্ষয় করে। পরের উপকার আকৃতি হয় ইংরেজি I অক্ষরের নতুন।
    নদী উপত্যকার পার্শ্বদেশ বৃষ্টির জল, আবহবিকার বা ধসের ফলে ক্ষয় পেতে পেতে ইংরেজি I আকৃতির উপত্যকা টি V অক্ষরের মত হয়।

(২) গিরিখাত ও ক্যানিয়ন :
     নদী উপত্যকা গভীর ও সংকীর্ণ হলে তাকে গিরিখাত বলে। আর শুষ্ক অঞ্চলে গঠিত এই গিরিখাতকেই ক্যানিয়ন বলা হয়। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো নদীর গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন পৃথিবীর বিখ্যাত ক্যানিয়ন।

(৩) জলপ্রপাত :
      পার্বত্য অঞ্চলে নদীর দৈর্ঘ্য বরাবর গতিপথের ঢাল অসম হলে নদীর জল প্রবলবেগে নিচের দিকে পড়ে। এই আপতিত জব কঠিন শিলা অপেক্ষা কমল শিলাকে বেশি পরিমাণে ক্ষয় করে জলপ্রপাত সৃষ্টি করে। পৃথিবীর উচ্চতম জলপ্রপাত হল ভেনেজুয়েলার সাল্টো এঞ্জেল।

(৪) প্রপাত কূপ : 
     জলপ্রপাতের জল প্রবল বেগে যেখানে পরে সেখানে হাঁড়ির মতো বিশাল আকারের গর্তের সৃষ্টি করে। সাধারণভাবে একেই প্রপাতকূপ বলা হয়।

(৫) শৃঙ্খলিত শৈলশিরা : 
     পার্বত্য অঞ্চলের নদী আড়াআড়িভাবে যদি কোন পাহাড় থাকে তাহলে সেই পাহাড়কে এড়িয়ে যাওয়ার জন্য নদী এঁকে বেঁকে প্রবাহিত হয়। তখন এই শৈলশিরাগুলিকে দূর থেকে মনে হয় যেন শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে অবস্থান করেছেন। একেই শৃঙ্খলিত শৈলশিরা বলে।
Tags

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

LightBlog

Below Post Ad

LightBlog

AdsG

close